অনেকে ইনবক্সে জানতে চাচ্ছেন ওয়ার্ক পারমিট নবায়ন না হওয়া সংক্রাত বিষয়ে তথ্য, তাদের জ্ঞাতার্থেই এ পোষ্ট। আগের পোষ্টে সুপারভাইজর কোর্সটি চেক করে পরিস্কার হতে বলেছিলাম (যদিও যারা অসদুপায় অবলম্বন করে সার্টিফিকেট নিয়েছে তারা নিজেরাই জানে, চেক করার প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না।)

এবার আসুন MOM এর চিঠি প্রসঙ্গেঃ 
আমার জানা মতে কয়েক ধরনের চিঠি পাচ্ছেন কর্মীরা। যেমন-
১। পারমিটের মেয়াদ শেষ হলে আর নবায়ন হবে না.
২। পারমিট নবায়ন হবে না এবং পরবর্তীতে আর সিঙ্গাপুরে আসতে পারবে না।
৩। পারমিট নবায়ন হবে তবে সুপারভাইজর লেভেলে কাজ করতে পারবে না।
৪। সুপারভাইজর কোর্স নির্দিষ্ট সময়ের মাঝে বৈধ কোন ট্রেনিং সেন্টার থেকে পুনরায় করে সার্টিফিকেট জমা দিতে হবে।

এর বাইরে ভিন্ন (সুপারভাইজর) সংক্রান্ত কোন কারন এ কেউ পেয়েছে কিনা জানা নাই ( জানা থাকলে জানাতে পারেন)।  উপরোল্লিখিত কারনগুলো সোজাসাপটা এবং না বোঝার কোন কারন দেখি না। (চোরের দশ দিনের মতই অবস্থা)

আর আপনার সার্টিফিকেট মেয়াদোত্ত্বীর্ন না হলে যে ট্রেইনিং সেন্টারে কোর্স করেছেন সেটি বন্ধ হয়ে গেলেও কোন সমস্যা হবার কথা না।

আপনি যা করবেনঃ
লেটারের ডান পাশে দেখুন আপনাকে এখন যা করতে হবে। ভাল করে পড়ুন এবং নিয়োগকর্তার সাথে খোলাখুলি আলাপ করুন। তাতে সঠিক উপায় বের হবে।
এখন আসেন অবস্থা থেকে পরিত্রানের বিষয়ে বলি। যারা সিঙ্গাপুরে থাকেন বা ছিলেন তারা সিঙ্গাপুরের আইন বিষয় কম বেশি জানেন, আইনের প্রতি কতটা শ্রদ্ধাবোধ । তার উপর ভিত্তি করেই বলা যায়, গৃহীত সিদ্ধান্তের কোন পরিবর্তন হবে বলে মনে হয় না। তাই সে  অনুযায়ী প্রস্তুত থাকাই ভাল।

দেখার বিষয় হাই কমিশন বা বাংলাদেশীদের মুখপাত্র বলে পরিচয় দানকারী বিভিন্ন সংঘঠন এ বিষয়ে লবিং করে কিছু করতে পারে কিনা। আফটার অল প্রবাসীদের জন্য, প্রবাসীদের দিয়েই তারা।

(NB: ওয়ার্ক পারমিট সংক্রান্ত বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবার একমাত্র কর্তৃপক্ষ, এ পোষ্টটি শুধু মাত্র প্রাপ্ত তথ্য উপাত্তের ভিত্তিতে এবং এর কোন আইনগত ভিত্তি নেই) 

Facebook Comments