ইতিহাসগাজীপুরজাতীয়

গাজীপুর জেলার নামের রহস্য ও ইতিহাস

গাজীপুর জেলার নামের রহস্য এবং নামকরণের সঠিক  ইতিহাসঃ-
#বিলু কবীরের লেখা ‘বাংলাদেশর জেলা নামকরণের ইতিহাস’ বই থেকে…

জানা যায়, মহম্মদ বিন তুঘলকের শাসনকালে জনৈক মুসলিম কুস্তিগির গাজী এ অঞ্চলে বসতি স্থাপন করেছিলনন এবং তিনি বহুদিন সাফল্যের সঙ্গে এ অঞ্চল শাসন করেছিলেন। এ কুন্তিগির/পাহলোয়ান গাজীর নামনুসারেই এ অঞ্চলের নাম রাখা হয় গাজীপুর বলে লোশ্রুতি এ রকম সম্রাট আকবরের সময় চবি্বশ পরগনার জায়াগিরদার ছিলেন ঈশা খাঁ। এই ঈশা খাঁরই একজন অনুসারীর ছেলের নাম ছিল ফজল গাজী। যিনি ছিলেন ভাওয়াল রাজ্যের প্রথম ‘প্রধান’। তারই নাম বা নামের সঙ্গে যুক্ত ‘গাজী। পদবি থেকে এ অঞ্চলের নাম রাখা হয় গাজীপুর। গাজীপুর নামের আগে এ অঞ্চলের নাম ছিল জয়দেবপুর। এ জয়দেবপুর নামটি কেন হলো, কত দিন থাকল কখন, কেন সেটা আর থাকল না_সেটি ওপ্রসাঙ্গিক ও জ্ঞাতব্য।ভাওয়ালে জমিদার ছিলেন জয়দেব নারায়ণ রায় চৌধুরী।বসবাস করার জন্য এ জয়দেব নারায়ণ চৌধুরী পীরাবাড়ি গ্রামে একটি গৃহ নির্মাণ করেছিলেন। গ্রামটি ছিল চিলাই নদীর দক্ষিণ পাড়ে। এ সময় ওই জমিদার নিজের নামের সঙ্গে মিল রেখে এ অঞ্চলটির নাম রাখেন “জয়দেবপুর “এবং এ নামই বহাল ছিল মহকুমায় হওয়ার আগ পর্যন্ত। যখন জয়দেবপুরকে মহকুমার উন্নত করা হয়, তখনই এর নাম পাল্টে  জয়দেবপুর রাখা হয়।উল্লেখ্য, এখনো অতীতকাতর -ঐতিহ্যমুখী স্থানীয়দের অনেকেই জেলাকে ‘জয়দেবপুর’ বলে উল্লেখ করে থাকেন।গাজীপুর সদরের রেলওয়ে স্টেশনের। তবে বিস্তারিত আলোচনায় গেলে বলতেই হয়,গাজীপুরে আগের নাম জয়দোবপুর  এবং তারও আগের নাম ভাওয়াল। গাজীপুরকে ১৯৮৪ খ্রিস্টাব্দের ১ মার্চ জেলা এবং ২০১৩ খ্রিঃ৭ই জানুয়ারী রোজ সোমবার সিটি কর্পোরেশন ঘোষণা করা হয়।

কপি – জাহিদ বিন সাহাদাৎ।
Facebook Comments

Related Articles

Back to top button
Close
Close