জানা অজানার সিঙ্গাপুর- সিঙ্গাপুরের কিছু মসজিদ

155

সিঙ্গাপুর মসজিদের শহর না। এ দেশে ধর্মীয় লোক সংখ্যার অনুপাতে মুসলিম খুব বেশি নয়, মাত্র ১৫ %। যদিও এদেশে ধর্ম নিয়ে কারোও ততটা মাথা ব্যাথা নেই বা বলা চলে ধর্মীয় গোড়ামিমুক্ত । সিঙ্গাপুরিয়ানদের প্রায় সব মালায় এবং ২৫% ইন্ডিয়ান মুসলিম ধর্মানুসারী। তার পরও মসজিদের সংখ্যা নেহায়েতই কম না। ৭১৬ বর্গ কিলোমিটারের এ দেশে ছোট বড় মিলিয়ে ৭১ টি ( ইসলামিক রিলিজিয়াস কাউন্সিলের হিসাব মতে)। সীমিতি সম্পদের সর্বোত্তম ব্যবহারকারী দেশ সিঙ্গাপুরে মসজিদ গুলোও ঠিক তেমনি শুধু মাত্র মসজিদ হিসেবেই ব্যবহৃত হয় না বরং মাদ্রাসা এবং ধর্মীয় কর্মকান্ডের প্রানকেন্দ্র হিসেবে ও পরিচালিত হয়।
মজসিদ গুলো মসজিদ ম্যানেজমেন্ট বোর্ডের অধীনে মসজিদ ম্যানেজমেন্ট এবং মসজিদ ফাইন্যান্সিয়াল আইন দ্বারা পরিচালিত হয়। সিঙ্গাপুরের ইসলামিক রিলিজিয়াস কাউন্সিলের শাখা মসজিদভিত্তিক সকল কার্যক্রম মনিটর করে। মসজিদে ইমাম সাহেবের খুদবা থেকে শুরু করে মসজিদ কমিটির বক্তব্য সবই বোর্ডের পুর্বানুমতি সাপেক্ষে এবং অনুমোদিত অংশই প্রচার করা হয়। ধর্মীয় সহিষ্ণুতা বজায় রাখার জন্য এ নিয়মের ব্যতিক্রমের কোনই অবকাশ নাই।

মসজিদ বা তার জায়গা সিঙ্গাপুর সরকার থেকে লিজ নিয়ে পরিচালিত হয়।
বেশ কয়েকটি মসজিদের ডিজাইন খুবই মনোমুগ্ধকর। আসুন পরিচিত হই সিঙ্গাপুরের কিছু মসজিদের সাথে।

আবদুল গাফুর মসজিদ 
 

আল আনসার মসজিদ

আল ইমাম মসজিদ

আল মুখমিনিন মসজিদ 

আন-নাহদাহ মসজিদ

আসসায়াফ মসজিদ

আসায়াকিরিন মসজিদ

দারুল গোফরান মসজিদ

কাসিম মসজিদ

মজসিদ আঙ্গুলিয়া , বাংলাদেশীদের অঘোষিত মিলন কেন্দ্র মুস্তফা শপিং সেন্টারের আশে পাশে বলে বাঙ্গালিদের কাছে সবচেয়ে পরিচিত মসজিদ এটি। 

মসজিদ আবদুল আমিন

মালাবার মসজিদ

মসজিদ হাজ্জা ফাতিমা

মসজিদ ওয়াক তানজং

সুলতান মসজিদ, সিঙ্গাপুরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন মসজিদ।

মসজিদ আলমুত্তাকিন 

মসজিদ ওমার কাম্পুং মালাকা। সবচেয়ে পুরাতন মসজিদ এটি যা প্রতিষ্ঠিত হয় ১৮২০ সালে। 

মসজিদ হাসানাহ